Thursday, August 21, 2008

Hectic days with Ticket-ic problem

গত কয়েকটা দিন যা গেলো, পুরা মাথা খারাপ অবস্থা। ভিসা পাওয়া নিয়া মানুষ ঝামেলায় পড়ে জানতাম, কিন্তু প্লেনের টিকেট-এর জন্য যে এত গোলমাল সহ্য করতে হইতে পারে তা বুঝলাম এইবারে।

আমরা যারা ইটালি যাচ্ছি, সবাই খুব সহজে ভিসা পেয়ে গেছিলাম। তখন আমাদের খুশি দেখে কে! কিন্তু উপরওয়ালার মুচকি হাসি আমরাও দেখতে পাই নাই :( । তো ভিসা পাওয়ার পর যেইখানে থেকে আমরা বুকিং দিছিলাম ওই ব্যাটারা বললো, মাত্রই তো ভিসা পাইলেন, কয়েকটা দিন আরাম করেন, এইতো আমরা টিকেটের ব্যবস্থা করতেছি। আমরাও নাদান বালক ফটিকের মতো পায়ের উপর পা তুইলা 'ইউরোপিয়ান ড্রিম' দেখায় সময় দিলাম। এইভাবে কয়েকদিন যাওয়ার পর মাঝখানে খবর আসলো যে টিকেট নাকি পাওয়া যাচ্ছে না। আমরা পাত্তা দিলাম না, দুর্জনেরা তো কত কথাই বলে, সব কিছুতে কান দিতে হয় নাকি?

আরো কয়েকদিন পর আমাদের টনক নড়লো, বুঝলাম সমস্যা প্রকট এবং দিবাস্বপ্নের বদলে দুঃস্বপ্ন দেখা শুরু করলাম। আমরা নয় জন ইটালিতে উচ্চশিক্ষাগামী যুবক একসাথে টিকেট বুকিং দিছিলাম। সবাই প্যানিকড হয়ে পড়াতে সমস্যা ঘোরতর আকার ধারণ করলো - এই নয় জনের অনেকেই পারসোনালি ট্রাই করা শুরু করলো, এবং (যেহেতু বাঙ্গালি জাতিগত ভাবেই জোট বাধায় বিশ্বাসী) সবাই চেষ্টা করলো নয় জনের জন্যই। ফলে সব লো কস্ট সিটগুলি বুকড হয়ে গেলো (নিশ্চয়ই আমাদের মতো এইরকম আরো কয়েকটা গ্রুপ আছে!)। আমাদের বাজেটের মধ্যে আর কিছুই পাওয়া যাচ্ছিলো না। আমাদের একজনকে তার ট্রাভেল এজেন্ট বললো, "আপনারাই তো মার্কেট গরম করছেন!"

এইরকম প্রচুর টুকটাক কাহিনী হইলো - টানা দুইদিন বসে থেকেও টিকেট পাওয়া গেলো না, একজনের নামের বানান ভুলের জন্য সবার বুকিং বাতিল হয়ে গেলো, আবার একজন টাকা দিয়ে টিকেট হাতে নিয়া নিশ্চিন্ত হওয়ার পরের দিন জানতে পারলো আসলে টিকেট বাতিল। এর মাঝে একজন আবার সিস্টেম করে আমাদের সবাইরে বোকা বানায়ে নিজের ব্যবস্থা করে ফেললো। গায়ে-গতরে বাড়লেও এখনও অনেক কিছু শেখা বাকি আছে, এইটা বুঝতে পারলাম। এইসব কাহিনী যা বললাম, সব আমার নিজের দেখা। অন্যান্য সবার নিশ্চয়ই এই টাইপ কাহিনী স্টকে আছে। যাহোক, সবাই মিলে ট্রাই করার কারনেই গ্যাঞ্জাম হচ্ছে, এইটা বুঝতে পেরে সবাই দুই-তিন জন এর দলে ভাগ হয়ে গেলো এবং যতটুকু জানি সবাই মোটামুটি টিকেট পেয়ে গেছে, একদিনের চেষ্টাতেই। লোয়েস্ট দামের চেয়ে পাঁচ বা দশ হাজার টাকা বেশি দিয়ে অবশ্য।

অনেকেই বললো, এইটা নাকি বেশ কমন; খুব রাশ আওয়ারে এজেন্টরা কম দামের টিকেটগুলি বুক করে দামের লেভেলটা বাড়ায় দেয়। আর আমাদেরকে বেশি দাম দিয়েই কিনতে হয়। এই কাহিনীর 'মরাল অব দ্য স্টোরি' কি হইতে পারে সেইটা নাহয় না চিন্তা করলাম, কিন্তু আপনারা কেউ 'এহসান এয়ার ট্রাভেলস' নামের কোন ট্রাভেল এজেন্ট থেকে কোনদিন টিকেট কেনার ধান্দা কইরেন না কখনোই, তাইলে এই কাহিনীর পুনরাবৃত্তি হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা আছে!

6 comments:

শামস উল আরেফিন said...

কষ্চ আছে বলেই তো সুখ অনুভব করা যায়। "চাম" যু্ক্ত জিনিসের (চামে যে জিনিস পাওয়া যায়)প্রতি আমাদের সকলেরই আগ্রহ থাকলেও মর্যাদা হিসেবে যে তা অতি নিম্নমানের- এই জানা সত্যটি অচিরেই প্রমাণিত হবে বলে আশা করছি। যাত্রা শুভ হোক...

শাহান said...

সাদ্দামের কি খবর?

Rafi said...

সাদ্দাম আর আমি এক সঙ্গেই যাচ্ছি। মানে আমাদের দুইজনে গ্রুপ।

শাহান said...

আর লেখস না কেন?

Songsoptak said...

ভাইয়া -‍একটা কথা-'বাঙ্গালি জাতিগত ভাবেই জোট বাধায় বিশ্বাসী'- এই কথাটার প্রমান কিন্তু ‍ইতিহাসে না‍ই, কথাটা সত্যি হলে বাঙ্গালি জাতি নিজেদেরকে বিভক্ত করে আজ দুই বাস করার সিদ্ধান্ত নিতে পারতো না।

Rafi said...

shahan, I am dying to write..just waiting for a personal computer of my own..

songsoptak, i think there is a limit on the grouping;as the group broadens,the tendency decreases..
anyway, point noted!